Wednesday, May 24, 2006

ফিনিক্স পাখিরা

ফিনিক্স পাখিরা
-- কমলেশ পাল

তোমরা মর না৷
তোমরা মৃতুর পুকুরে ডুবসাঁতার দিয়ে
এপারের প্রান্ত থেকে ওপারের প্রান্তে জেগে ওঠ৷
ইন্দোনেশিয়ার গণকবর থেকে
জেগে ওঠ কিউবায়;
কিউবা থেকে বলিভিয়ায়৷
তোমরা মর না৷
মৃত্যু তোমাদের পিছনে কুকুরের মতো হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়ায়৷

তোমাদের জন্যে তৈরি হয়েছে হেমলক
তৈরি হয়েছে ক্রুশ
ফাঁসির দড়িতে ঘষা হয়েছে মোম
গ্যাস চেম্বার, বৈদ্যুতিক চেয়ার;
ঘাতকের হাতে রাইফেল তুলে দিয়ে
প্র্যাকটিস করানো হয়েছে বুল্স্ আই৷
তবু
এক একটি মৃত্যুর মধ্য দিয়ে তোমরা
দ্বিগুণ ভাবে বেঁচে ওঠ৷

এ যেন তোমাদের মরণঝাঁপের খেলা৷
মঞ্চে উঠে দাঁড়িয়েছ
তার নিচে, অনেক অনেক নিচে
কূপের গভীরে টলটল করছে মৃত্যু ৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷৷

তোমরা
ভয়ের তোয়াক্কা না করে
শরীরে আগুন জ্বেলে
হঠাত্ই
লাফ দিয়ে নেমে যাও উল্কার মতন৷
আগুনের ডানা
মৃত্যুর কালো জলে ঝাপট মেরে
উড়ে যায়৷

দূরের গ্যালারি থেকে
ব্যক্তিগত নিরাপত্তা থেকে
শ্বাসরুদ্ধ আমরা দেখেছি
এইসব ভয়ঙ্কর খেলা৷
এখনও দেখছি

পৃথিবীর বিভিন্ন তাঁবুতে
তোমরা উঁচু হয়ে দাঁড়িয়েছ
মরণকূপের সামনে ঝকঝকে কিরিচের মতো৷

সার্কাসের মালিকের কাছে
ঈশ্বরের কাছে
সমস্ত রাষ্টের্র কাছে
রাষ্টস্রংঘের কাছোমরা প্রার্থনা করেছি :
আর নয়,
এইসব বিপজ্জনক খেলা সংক্রামক৷
প্রতিটি মরণঝাঁপ
আমাদের আগলে রাখা তরুণদের
মৃত্যুকূপের দিকে টেনে নিয়ে যায়৷
তোমরা মর না৷
তোমরা শুধু মৃত্যুকে তুচ্ছ করার
মন্ত্র শিখিয়ে দিয়ে যাও৷
হেমলক, ক্রুশ, ফাঁসি, গ্যাসচেম্বার
বৈদ্যুতিক চেয়ার, রাইফেল -
সমস্ত মৃত্যুর আয়োজনের উপর দাঁড়িয়ে
তোমরা উড্ডীন করছো
প্রাণের পতাকা৷

তোমরা সেই কিংবদন্তীর পাখি
যাকে পোড়ালে আবার নতুন করে বেঁচে ওঠে৷
যে একটা আগুনের যন্ত্রণা জড়িয়ে
অন্য একটা অগ্নিকাণ্ডের দিকে ছুটে যায়৷
যাকে ধরতে গিয়ে
মৃত্যু
আহত পশুর মতো
মুখ থুবড়ে পড়ে থাকে, আর
সেই পাখি
মানুষের হদৃয়ের আকাশে আকাশে
উড়তেই থাকে ৷৷৷৷৷৷ উড়তেই থাকে ৷৷৷৷৷৷ উড়তেই থাকে

তোমরা মর না৷
পৃথিবীর ফিনিক্স পাখিরা
তোমরা বেঁচে থাক৷

0 Comments:

Post a Comment

<< Home